গভীর রাতে স্বর্ণের কলসি দিতে এসে ২ জ্বীনের বাদশাহ আটক

গভীর রাতে স্বর্ণের কলসি দিতে এসে ২ জ্বীনের বাদশাহ আটক

গভীর রাতে মোবাইল ফোনে কল। জ্বীনের বাদশাহ পরিচয় দিয়ে টাঙ্গাইলের সুরুজ্জামানকে বললেন-‘পাঁচ হাজার একশ টাকা দিলে তুই একটা সোনার পুতুল পাবি।’ তাদের কথামত সুরুজ্জামান এক মসজিদের দান বাক্সের ওপর টাকা দিয়ে পুতুল নিয়ে আসেন। বাড়ি এসে খুলে দেখেন- পুতুলটি সোনার নয়, পিতলের। তখনই বুঝতে পারেন তিনি প্রতারকদের খপ্পরে পড়েছেন।এদিকে পাঁচ

হাজার একশ টাকা পেয়ে জ্বীনের বাদশাহরা আবার তাকে ফোন করে জানায়- ‘৫০ হাজার টাকা দিলে তুই সোনার কলসি পাবি।’ তখনই গ্রামবাসীকে সাথে নিয়ে উল্টোফাঁদ পেতে হাতেনাতে ধরে ফেলে ওই দুই জ্বীনের বাদশাহকে। পরে গণধোলাই দিয়ে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়। শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার দেউপুর গ্রামে।কতিথ দুই জ্বীনের বাদশা

হলেন- গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নদাপুর গ্রামের ডিপ্তি আকন্দের ছেলে মোখলেছুর রহমান (২৮) ও একই এলাকার মৃত আব্দুস ছাত্তারের ছেলে আবু তাহের (৩৩)।স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার রাতে জ্বীনের বাদশাহ পরিচয়ে কালিহাতী উপজেলার দেউপুর গ্রামের সুরুজ্জামানের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলেন প্রতারক মোখলেছুর রহমান ও আবু তাহের। একপর্যায়ে

কথিত ওই জ্বীনের বাদশাহরা সুরুজ্জামানকে সোনার পুতুলের কথা বলে পাঁচ হাজার একশ টাকা হাতিয়ে নিয়ে পিতলের পুতুল দেন।কথা ছিল পুতুলের প্যাকেট যেন আগেই না খোলা হয়। কিন্তু সুরুজ্জামান প্যাকেট খুলে তাদের প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পারেন। এরমধ্যে জ্বীনের বাদশাহরা আবার ৫০ হাজার একশ’ টাকার বিনিময়ে সোনার কলসি দেয়ার কথা জানান।এবার সুরুজ্জামান

বিষয়টি এলাকার কয়েকজনকে জানিয়ে মসজিদের দান বাক্সের উপরে কিছু পাঁচশ টাকার নোট আর কাগজ দিয়ে মোড়ানো একটি বান্ডেল রেখে আসেন। রাতে ওই দুই প্রতারক টাকা নিতে এলে

এলাকাবাসী তাদের হাতেনাতে ধরে ফেলেন। পরে গণপিটুনি দিয়ে রোববার তাদের পুলিশের হাতে তুলে দেন।এ বিষয়ে কালিহাতী থানার ওসি (তদন্ত) নজরুল ইসলাম জানান, কথিত দুই জ্বীনের বাদশাহকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


Copyright © (2018) All Rights Reserved Rnewsbd.com
Desing & Developed BY NewsSKy